April 14, 2021, 5:21 am

#
ব্রেকিং নিউজঃ
চট্টগ্রাম রিপোর্টার্স এসোসিয়েশনের জরুরী সভা অনুষ্ঠিত.সাপাহার সদর ইউনিয়নে শতভাগ মাস্ক ব্যবহার নিশ্চিতে বাড়ি বাড়ি মাস্ক বিতরণ।রমজান আসার আগেই চট্টগ্রাম শপিং কমপ্লেক্সে ক্রেতাদের ভিড়।সাংবাদিক নিয়োগ নীতিমালা নেই বলেই জনকন্ঠ রক্ত ঝড়ালো: বিএমএসএফ।মামুনুল হকের আরেক ‘প্রেমিকা’র সন্ধান।গার্মেন্টস খোলা রাখার দাবি জানান পোশাক মালিকদের সংগঠন বিজিএমইএশীঘ্রই মুক্তি পাচ্ছে ‘আতেঁল প্রেমিক’চৌদ্দগ্রামে নারায়নপুর প্রবাসী সমিতির উদ্যোগে গরীব ও অসহায় মানুষের মাঝে নগদ টাকা ও ইফতার সামগ্রী বিতরণ।করোনা সচেতনতায় স্বাস্থ্য সামগ্রী বিতরণ।চট্টগ্রাম পটিয়া সাংবাদিক কাদের কে হত্যার চেষ্টায় সাংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত।

আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপে সংঘর্ষ, নিহত ১ বিদ্রোহী প্রার্থী কাদেরসহ গ্রেফতার ২৬

মাহিন উদ্দিনঃ চট্টগ্রাম আগ্রাবাদ নগরীর পাঠানটুলী এলাকায় আজগর আলী বাবুল সর্দার নিহত হওয়ার ঘটনায় বিদ্রোহী কাউন্সিলর প্রার্থী ও নগর যুবলীগের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য আবদুল কাদের (মাছ কাদের) ও তার ২৫ জন অনুসারীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার (১২ জানুয়ারি) রাত ১০টা থেকে ১টা পর্যন্ত ২৮ নম্বর পাঠানটুলী ওয়ার্ডের বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করে পুলিশ। সাবেক আওয়ামীলীগের কাউন্সিলর আব্দুল কাদের ( মাছ কাদেরকে) তার বাসা থেকে গ্রেফতার করা হয়।

বিষয়টি নিশ্চিত করে ডবলমুরিং থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সদীপ কুমার দাশ সাংবাদিকদের বলেন, গোলাগুলিতে আজগর আলী বাবুল সর্দার নিহত হওয়ার ঘটনায় আমরা আবদুল কাদেরসহ ২৬ জনকে গ্রেফতার করেছি। বিস্তারিত পরে জানানো হবে।

প্রসঙ্গত, মঙ্গলবার রাত নয়টার দিকে পাঠানটুলীর মগ পুকুর এলাকায় প্রতিদ্বন্দ্বী দুই কাউন্সিলর প্রার্থীর সমর্থকদের গোলাগুলিতে স্থানীয় মহল্লা সর্দার আজগর আলী বাবুল নিহত হন। একই ঘটনায় মাহবুব নামে আরেক কর্মী গুলিবিদ্ধ হন। এ ঘটনার জন্য নজরুল ইসলাম বাহাদুর আবদুল কাদেরকে দায়ী করলেও তা অস্বীকার করেছেন আব্দুল কাদের।

আওয়ামী লীগ সমর্থিত কাউন্সিলর প্রার্থী নজরুল ইসলাম বাহাদুর সাংবাদিকদের বলেন, মগপুকুর এলাকায় গণসংযোগকালে বিদ্রোহী প্রার্থী আবদুল কাদেরের অনুসারীরা শাটার গান নিয়ে সশস্ত্র হামলা চালায়। এতে স্থানীয় মহল্লার সর্দার বাবুল গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা যান। আমাকে বাঁচাতে গিয়ে এসময় যুবলীগ কর্মী মাহবুবও গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। তাদেরকে হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

তবে অভিযোগ অস্বীকার করে বিদ্রোহী প্রার্থী ও সদ্যসাবেক কাউন্সিলর আবদুল কাদের সাংবাদিকদের বলেন, আমার কর্মী-সমর্থকদের নিয়ে আবু শাহ মাজার এলাকায় গণসংযোগ করছিলাম। আমি দু’তলা একটি বাসায় অবস্থান করার সময় নিচে থাকা আমার অনুসারীদের আচমকা ধাওয়া করে নজরুল ইসলাম বাহাদুরের অনুসারীরা। এরপর তারা গুলি ছুঁড়লে আমি বাসার ভিতরেই অবস্থান নিই। যে মারা গেছে সে বিরোধী পক্ষের কর্মী। কিন্তু কীভাবে মারা গেছে তা আমরা জানি না।

তিনি বলেন, আমি সকালে নির্বাচন কমিশনে তাদের বিরুদ্ধে আমার পোস্টার ছেঁড়ার অভিযোগ দিয়েছি। যার কারণে তারা পূর্ব-পরিকল্পিতভাবে এ হামলা চালিয়েছে।

চট্টগ্রাম নগর পুলিশের (সিএমপি) উপ-কমিশনার (পশ্চিম) ফারুক-উল-হক মহানগর নিউজকে বলেন, দুই কাউন্সিলর প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে দুইজন আহত হয়েছেন। তাদের মধ্যে একজন মারা যাওয়ার খবর পেয়েছি। এলাকায় আমি নিজে উপস্থিত আছি ও আমাদের অতিরিক্ত ফোর্স মোতায়েন করা হয়েছে।

উল্লেখ, নজরুল ইসলাম বাহাদুর চট্টগ্রাম নগর আওয়ামী লীগের সদস্য এবং ২৮ নম্বর পাঠানটুলী ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি। তিনি শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেলের অনুসারী। ২০১০-২০১৫ মেয়াদে তিনি ওয়ার্ড কাউন্সিলর ছিলেন।

অপরদিকে নগর যুবলীগের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য আবদুল কাদের ২০১৫ সালে ওই ওয়ার্ড থেকে কাউন্সিলর নির্বাচিত হন। কাদের নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আ জ ম নাছির উদ্দীনের অনুসারী।

#

     আরো পড়ুন:

পুরাতন খবরঃ

শুক্র শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০