October 23, 2021, 9:38 pm

#
ব্রেকিং নিউজঃ
লাকসামে শেখ রাসেল দিবস উপলক্ষে রিসোর্স ইন্টিগ্রেশন সেন্টার (রিক) এর উদ্যোগে মিলাদ, দোয়া মাহফিল ও  খাবার বিতরণ অনুষ্ঠিত।আধুনিকতার আরেক নাম মমতাময়ী হাসপাতাল।বন্য ও প্রাণী রক্ষার দাবিতে মানববন্ধনসাভারে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রে আন্তর্জাতিক প্রবীণ দিবস পালনঅ্যাডভোকেট আবু বক্কর সিদ্দিকের মৃত্যুতে জাতীয় মানবাধিকার সমিতির শোকদেবীদ্বারে উপজেলা প্রেসক্লাবে সাংবাদিক আতিকুর রহমান বাশার’র ৫৯ তম জন্ম বার্ষিকী পালননিয়ামতপুরে নবাগত ইউএনওর যোগদান ।।কুমিল্লায় শচীন দেব বর্মণের ১১৫তম জন্মদিন পালিতনাকইল আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষককে বিদায় সংবর্ধনা প্রদানপেকুয়ায় থানা প্রশাসনের সচেতনতামূলক সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে

সুরিয়া নদীর ভাঙ্গন এলাকা পরিদর্শন করেন উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা হাসান মারুফ

স্টাফ রিপোর্টার: ময়মনসিংহের গৌরীপুর উপজেলার মাওহা ইউনিয়নের পাশ দিয়ে বয়ে যাওয়া সুরিয়া নদী ভাঙ্গন নিয়ে বিভিন্ন অনলাইন ও প্রিন্ট ভার্সনে “নদী গর্ভে বিলীন হচ্ছে অর্ধ শতাধিক ঘরবাড়ি ও গ্রামীন সড়ক” শিরোনামে সংবাদ প্রকাশ হলে তা দৃষ্টিগোচর হয় গৌরীপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হাসান মারুফের। মঙ্গলবার ২১ সেপ্টেম্বর সকালে সরেজমিনে ভাঙ্গন এলাকা দেখতে যান তিনি। এসময় উপস্থিত ছিলেন ইউপি সদস্য মতিউর রহমান (এন্টেশ মিয়া), কামরুজ্জামান নয়ানগড় সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুল কদ্দুস ও এলাকার স্থানীয় জনসাধারণ । ইউএনও হাসান মারুফ জানিয়েছেন নদী ভাঙ্গনরোধে উর্ধতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে। উল্লেখ্য কুশ্বাপাড়া, নয়াগনগর ও কুমড়ী গ্রামের ফসলি জমি, বসতভিটা, উল্লেখিত ইউনিয়ের নয়ানগর গ্রামের সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, ঈদগাহ মাঠ, বসতবাড়ি ও কুমড়ী গপশ্চিম পাড়ার রাস্তাসহ নদী গর্ভে বিলীন হয়ে যাচ্ছে। সেই সাথে কয়েক একর আবাদি জমি নদী গর্ভে বিলীন হয়ে গেছে । কুমড়ী গ্রামের নদীর পাড়ের বাসিন্দা শামীম,সুমন,শামছুল আলম,আবুল হাসেম , সাইফুল ইসলাম, রমজান, মজিদ, আব্দুল্লাহ, আল আমিন, কাশেম,এখলাছ মিয়া,কামরুল সিরাজ,লিটন,মিরাজ,ইদ্রিস, বাংলাদেশ সেনাবাহিনীতে কর্মরত আব্দুল কাদির, মাওহা ইউনিয়ন পরিষদের ইউপি সদস্য মতিউর রহমান (এন্টেশ মিয়া) সহ আরও নাম না জানা আরও অনেকের পরিবার ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় নদীর পাড়ে দিনাতিপাত করছে। কিছু পরিবারের ঘর নদী গর্ভে বিলীন হয়ে যাওয়ার পরে অন্যত্র নতুন বাড়ি নির্মান করে বসবাস করছেন । কুমড়ী গ্রামের বাসিন্দা ইউপি সদস্য মোঃ মতিউর রহমান (এন্টেশ মিয়া) জানান আমার আবাদি জমি সুরিয়া নদী গর্ভে বিলীন হয়ে গেছে এমনকি আমার বসত ঘরটি অর্ধেকের বেশী নদী গর্ভে চলে গেছে। তাই ঘরটি তাড়াতাড়ি সরিয়ে অন্য জায়গায় বাড়ি করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। বাড়ির জায়গাটুকু নদী গর্ভে বিলীন হয়ে গেছে। ঐ গ্রামের অন্য বাসিন্দা শামীম, রতন,সুমন, জানান সুরিয়া নদীর পাড়ে আমরা অর্ধ শতাধিক পরিবারের বসবাস। আমাদের ফসলী জমি যা ছিল এই নদীতে বিলীন হয়ে গেছে এখন বাড়িটিও নদীতে ভেঙ্গে যাওয়ার পথে। আমাদের মত অনেকের ফসলী জমি নদী গর্ভে চলে গেছে ,যদি নদী ভাঙ্গন রোধে ব্যবস্থা না নেওয়া হয় তাহলে ফললি জমি বাড়ি ঘর, বিলীন হয়ে যাওয়ার আশংকা রয়েছে ।স্থানীয়রা জানান যে জায়গায় নদীটি বাকা দিয়েছে সেই জায়গায় ১০০ ফুটের মতো বাধঁ দেয়া হলে এ ভাঙ্গন থেকে রক্ষা পাওয়া যাবে।

#

     আরো পড়ুন:

পুরাতন খবরঃ

শুক্র শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০৩১