October 23, 2021, 9:20 pm

#
ব্রেকিং নিউজঃ
লাকসামে শেখ রাসেল দিবস উপলক্ষে রিসোর্স ইন্টিগ্রেশন সেন্টার (রিক) এর উদ্যোগে মিলাদ, দোয়া মাহফিল ও  খাবার বিতরণ অনুষ্ঠিত।আধুনিকতার আরেক নাম মমতাময়ী হাসপাতাল।বন্য ও প্রাণী রক্ষার দাবিতে মানববন্ধনসাভারে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রে আন্তর্জাতিক প্রবীণ দিবস পালনঅ্যাডভোকেট আবু বক্কর সিদ্দিকের মৃত্যুতে জাতীয় মানবাধিকার সমিতির শোকদেবীদ্বারে উপজেলা প্রেসক্লাবে সাংবাদিক আতিকুর রহমান বাশার’র ৫৯ তম জন্ম বার্ষিকী পালননিয়ামতপুরে নবাগত ইউএনওর যোগদান ।।কুমিল্লায় শচীন দেব বর্মণের ১১৫তম জন্মদিন পালিতনাকইল আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষককে বিদায় সংবর্ধনা প্রদানপেকুয়ায় থানা প্রশাসনের সচেতনতামূলক সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে

‘শাজাহান খান আগামীতে শেখ হাসিনারও পদত্যাগ চাইতে পারে।

মাদারীপুর প্রতিনিধিঃ‘শাজাহান খান আওয়ামীলীগের সংসদ সদস্য হয়ে মাদারীপুর জেলা আওয়ামীলীগের পদত্যাগ দাবী করে, সেই লোক আগামীতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনারও পদত্যাগ চাইতে পারে। তিনি কখনোই আওয়ামীলীগ মনেপ্রাণে ধারণ করে নাই। এটাই তার চরিত্র।’ এমন মন্তব্য করেছেন মাদারীপুর জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক কাজল কৃষ্ণ দে। তিনি বুধবার বেলা ১টার দিকে মাদারীপুরের ঘটকচর এলাকায় মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার সোহরাব হোসেন সর্দারের মার্কেট ভাংচুরের প্রতিবাদে মানববন্ধন শেষে সমাবেশে একথা বলেন।কাজল কৃষ্ণ দে বলেন, শাজাহান খান তার পিতা আওয়ামীলীগের প্রতিষ্ঠাকালিন সদস্য মৌলভী আছমত আলী খানের সাথেও আওয়ামীলীগের রাজনীতি করতে পারেনি। এখন তিনি জেলা আওয়ামলীগের সভাপতির পদত্যাদ চান। যে লোক নিজের দলের সভাপতির পদত্যাগ চাইতে পারে, সে আগামীতে শেখ হাসিনারও পদত্যাগ চাইতে পারে। এটাই তার চরিত্র। তিনি কখনোই আওয়ামীলীগের চেতনা ধারণ করেননি। তিনি হাত-পা ধরে এক সময়ে আওয়ামীলীগের সাথে এসেছিলেন। এখন তিনিই দলের ক্ষতি করছেন। গত ১২ জুন মাদারীপুরের ঘটকচর এলাকায় মাদারীপুর জেলা আওয়ামলীগের একাংশের অতর্কিত হামলায় স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার সোহরাব সর্দারের মার্কেটের দুইটি ব্যাংক, ব্যবসা প্রতিষ্ঠানসহ অন্তত ১৪টি মটরসাইকেল ভাংচুর করে। এতে পুলিশ, নারী ও শিশুসহ অন্তত ৮ জন আহত হয়েছে। এই ঘটনায় সদর থানায় মামলা করেছেন মুক্তিযোদ্ধা। এই ঘটনার পর থেকে এলাকায় চরম উত্তোজনা বিরাজ করছে। আওয়ামীলীগের ওই অংশের নেতৃত্ব দেন শাজাহান খান।দোষীদের গ্রেফতার ও বিচারের দাবীতে মানববন্ধন করা হয়। জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও মাদারীপুর পৌর মেয়র খালিদ হোসেন ইয়াদের পরিচালনায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক কাজল কৃষ্ণ দে, সহ-সভাপতি জাহাঙ্গীর কবির, আজাদ মুন্সি, জেলা যুবলীগের সভাপতি আতাহার সর্দার, জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক জাকির হাওলাদার, জেলা কৃষকলীগের সভাপতি জাকির হোসেন, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি জাহিন হোসেন অনিক, সাধারণ সম্পাদক বায়েজিত হাওলাদারসহ অন্যান্য নেতারা।এ ঘটনায় সদর থানায় মামলা করেছেন মুক্তিযোদ্ধা। এই ঘটনার পর থেকে এলাকায় চরম উত্তোজনা বিরাজ করছে। আওয়ামী লীগের একাংশের নেতৃত্ব দেন শাজাহান খান

#

     আরো পড়ুন:

পুরাতন খবরঃ

শুক্র শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০৩১