June 20, 2021, 3:20 pm

#
ব্রেকিং নিউজঃ
কুবিতে কর্মকর্তা পরিষদের দায়িত্ব হস্তান্তরফুলেল শুভেচ্ছায় শিক্ত হলেন ফরিদপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি জননেতা খলিলুর রহমান সরকারলাকসামে মুজিববর্ষের জমি ও গৃহ প্রদান উদ্বোধনসাপাহারে গৃহহীন পরিবারকে ঘর হস্তান্তরের শুভ উদ্বোধনহরিনাকুন্ডুর কৃতি সন্তান জিদানকে র‌্যাঙ্ক ব্যাজ পরাচ্ছেন গর্বিত পিতামাতা-অভিনন্দন সকলকেসকলকে নৌকার পক্ষে কাজ করার আহ্বান জানালের কেন্দ্রীয় যুবলীগ নেতা এহতাশেমুল হাসান ভূঁইয়া রুমিপীরগঞ্জে মুজিববর্ষ উপলক্ষে ভূমিহীন-গৃহহীন পরিবারকে জমি ও গৃহ প্রদান কার্যক্রম দ্বিতীয় পর্যায় শুভ উদ্বোধন।আরএমপি’র মতিহার ক্রাইম বিভাগের উদ্যোগে পালিত হলো বৃক্ষরোপণ অভিযান-২০২১গৌরীপুরে নতুন ঘর পেয়ে খুশি ২৫ ভূমি ও গৃহহীন পরিবাররাজারহাটের সাব-রেজিস্ট্রারের বিরুদ্ধে ভুয়া দলিল সম্পাদন ও নিয়ম বহির্ভূত অতিরিক্ত অর্থ আদায়ের অভিযোগ।

রাজশাহী নগরীর রেলবস্তি যেন শিশু কেনাবেচার হাট।

 রাজশাহী থেকে  মোঃ মনোয়ার হোসেনঃ

রাজশাহীর রেলওয়ে স্টেশন। যেন শুধু রেলের স্টেশন নয় শিশু বেঁচা কেনার ও এক স্টেশন। রেলবস্তি ঘিরে জমে উঠেছে শিশু কেনাবেচা। এই স্টেশনের গণশৌচাগারের পেছনের ফাঁকা জায়গার নির্জনতা ঘিরেই কিশোরীর কথিত সংসার। গর্ভে বেড়ে উঠছে শিশু। তবে ওই শিশুর বাবার নাম জানে না সে। ভূমিষ্ঠ না হতেই এরই মধ্যে পেটের শিশুকে বিক্রি করে দিয়েছে ওই কিশোরী। সন্তানহীন এক দম্পতি ভূমিষ্ঠসম্ভবা কিশোরীর পেটে থাকা সন্তান কিনে নিয়েছেন দশ হাজার টাকার বিনিময়ে। প্রতিদিন সন্তানসম্ভবা কিশোরীকে ওই দম্পতির পক্ষ থেকে তিন বেলা খাবার পৌঁছে দেওয়া হয় স্টেশন এলাকায়। সন্তান ভূমিষ্ঠের পর কিশোরী পাবে নগদ ১০ হাজার টাকা। শিশুর ভূমিষ্ঠের আশায় দিন গুনছে এখন। আরেক কিশোরী গত রমজানে তার শিশুকে ১৫ হাজার টাকায় বিক্রি করেছে। কামাল নামের এক মোটর গ্যারেজ (ভদ্রা এলাকার) কর্মী শিশুটিকে কিনে নেন। এভাবেই রাজশাহীতে চলছে গর্ভের সন্তান বেচাকেনা। শিশুর দরদামের তারতম্য রয়েছে। এবং তা নির্ভর করে লিঙ্গের উপর। মেয়ে হলে কম আর ছেলে হলে বেশি দাম। এনব বেচাকেনার মধ্যস্থতাকারী হিসেবে কাজ করেন সিমা নামের এক নারী। সে এসব শিশু বেচাকেনার সমন্বয় করেন। তিনি তার নিজের সন্তানকেও বিক্রি করেছেন। এ অবস্থায় গত শনিবার পুলিশ তাকেসহ তিন নারীকে গ্রেফতার করেছে। যাদের মধ্যে একজন ক্রেতাও রয়েছেন। গত শুক্রবার (২৭ নভেম্বর) এক গার্মেন্টস কর্মীর জন্য একটি শিশুর বন্দোবস্ত করে সিমা। সিমা ভদ্রা এলাকায় শ্যামলী নামের ওই নারীর কাছে তার পাঁচ মাসের এক শিশুকে বিক্রি করেন মাত্র ১২ হাজার টাকায়। ওই শিশুকে কিনে নেন ঢাকার ওই গার্মেন্ট কর্মী। বিক্রির পর থেকে শিশুর সেই মা শ্যামলীকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। ফলে শিশুকে কিনে বিপদে পড়েছেন ওই নিঃসন্তান দম্পতি। শিশুটি শ্যামলীর, নাকি চুরি করা- তা নিয়ে সংশয় দেখা দিয়েছে। পুলিশ জানায়, এসব ব্যবসার সাথে যারা জড়িত তারা নগরীর ভ্রাম্যমাণ পতিতা হিসেবে কাজ করে। রাজশাহীতে এই সিন্ডিকেটে বেশ কয়েকজন আছে। যাদের মধ্যে কয়েকজনের বয়স ১৮ বছরের নিচে। তেমনি কথা হয় স্টেশন এলাকায় সন্তান-সম্ভবা এক কিশোরীর সঙ্গে। কথা বলে জানা যায়, তার বাড়ি বরিশাল। শিশুকালে তার এই শহরে পা পড়ে। নিজের বাবা-মা সম্পর্কে তার জানা নেই। তার মতো আরও অনেক কিশোরী ও নারী রাজশাহী স্টেশনের পশ্চিমে প্রাইমারি স্কুলের পেছনে থাকে। তাদের কাছে অনেকে আসে। কে তার গর্ভের সন্তানের বাবা, তা সে জানে না। এই সন্তানের দায়িত্ব সে নিতে পারবে না। তাই গর্ভে থাকতেই সন্তানকে বিক্রি করে দিয়েছে। পুলিশের প্রাপ্ত তথ্যে, সিমার কথা উঠে আসে। সে এই সন্তান কেনাবেচার বিষয়টি সমন্বয় করে থাকে। গত মে মাসেও তার মাধ্যমে সন্তান বিক্রি করেছিল এক কিশোরী। জান্নাতি ওরফে সূর্য নামের এক গার্মেন্ট কর্মী গত শুক্রবার রাতে ভদ্রা রেল বস্তি থেকে সীমার মাধ্যমে শ্যামলীর কাছ থেকে শিশু কেনে। এদিকে, এমন গোপন কেনাবেচার তথ্যটি জানাজানির পর শনিবার (২৮ নভেম্বর) দুপুরে তাকেসহ তার খালা রোকেয়া ও মধ্যস্থতাকারী কিশোরীকে তুলে নিয়ে যায় রেল পুলিশ। এই বিষয়ে জানতে চাইলে রাজশাহী রেলওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ শাহ কামাল জানান, সিন্ডিকেটটিকে তারা চিহ্নিত করতে পেরেছেন। এরই মধ্যে তাদের বিরুদ্ধে অপহরণ মামলা হয়েছে। কেনাবেচার সঙ্গে জড়িতদের আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। আর শিশুটিকে ছোটমণি নিবাসে পাঠানো হয়েছে।

#

     আরো পড়ুন:

পুরাতন খবরঃ

শুক্র শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০