January 28, 2023, 9:09 am

#
ব্রেকিং নিউজঃ
সাবেক এমপি জয়নাল আবেদীন ভূঁইয়ার ১৮তম মৃত্যু বার্ষিকী পালিত।সার্ক জার্নালিস্ট ফোরাম বাংলাদেশ চ্যাপ্টারের সভা অনুষ্ঠিত।বরুড়ায় বীর মুক্তিযোদ্ধা সাবেক সাংসদ অধ্যাপক নুরুল ইসলাম মিলন’র উদ্যোগে প্রতিবন্ধীদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ।তুচ্ছ ঘটনা কে কেন্দ্র করে ৭ তম শ্রেণীর ছাত্র মাহীন কে পিটিয়ে আহত করল কারা ?নিখোঁজ সংবাদ😥সোনারগাঁয়ে আশা রিয়ারচর নাশকতা মামলার আসামীরা জামিনে এসে অস্ত্রের মহড়া এলাকাবাসী আতঙ্কে।ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় নিরাপদ অভিবাসন ও পুনরেকত্রীকরণ বিষয়ে সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময়।কুমিল্লায় স্ত্রী হত্যায় স্বামীর মৃত্যুদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত।পেকুয়ায় গলা কেটে টমটম নিয়ে যাওয়ার সময় ডাকাত আটক।চন্দ্রগঞ্জ বাজার বণিক কল্যাণ সমিতি নির্বাচন-২০২৩ ১৮টি পদে প্রার্থী ২৭ জন, ৭টিতে একক প্রার্থী।

মহেশপুরে দিনমজুর পরিবারের ৭ সন্তান পেয়েছে-জিপিএ-৫

মহেশপুরে দিনমজুর পরিবারের ৭ সন্তান পেয়েছে-জিপিএ-৫

মিজানুর রহমান, মহেশপুর(ঝিনাইদহ)প্রতিনিধিঃ

পড়ালেখার পাশাপাশি অন্যের জমিতে কামলার কাজ করেছেন শাহিন আলম আর ছামসুল হক। সাইফুল্লাহ খালিদ আর আসাদুল্লাহ গালীব তারা যমজ দুইভাই।তারাও পরের ক্ষেতের কামলার কাজ করেছেন।
আনিকা ইয়াসমিন, শামীমা ইয়াসমিন ও কবুরা খাতুনের বাবারাও অন্যের জমিতে কাজ করেই সংসার চালান। এই অদম্য মেধাবী ৭ শিক্ষার্থী ঝিনাইদহ মহেশপুরের মোঃ শহীদুল ইসলাম ডিগ্রি কলেজ থেকে এবারের এইচএসসি পরীক্ষায় অংশ নিয়ে জিপিএ-৫ পেয়েছেন।
হতদরিদ্র পরিবারের সন্তানদের এই ফলাফল গোটা এলাকায় সাড়া ফেলে দিয়েছে। শিক্ষকরা বলছেন, এই অদম্য মেধাবীরা তাদের প্রতিষ্ঠানের মুখ উজ্জল করেছে।
তারা অনেক কষ্ট করে পড়ালেখা করে জিপিএ-৫ পেয়েছেন। কলেজের অধ্যক্ষ মোঃ রফিকুল আলম জানান, এবছর এইচএসসি পরীক্ষার জন্য ২৫৮ জন নিবন্ধিত হন, কিন্তু পরীক্ষায় অংশ নেন ২৪৮ জন। যাদের সকলেই পাশ করেছেন। এর মধ্যে ৭ জন ছেলে-মেয়ে জিপিএ-৫ পেয়েছে।
তারা হলেন শাহিন আলম, ছামসুল হক, সাইফুল্লাহ খালিদ, আসাদুল্লাহ গালীব, আনিকা ইয়াসমিন, শামীমা ইয়াসমিন ও কবুরা খাতুন। এরা সকলেই হতদরিদ্র পরিবারের সন্তান।
এদের মধ্যে চারজন ছাত্র আছেন যারা নিজেরাই পরের জমিতে কামলার কাজ করেন। আর তিনটি মেয়ে আছেন, যাদের বাবারা অন্যের জমিতে কামলা খাটেন। এই সব হতদরিদ্র পরিবারের ছেলে-মেয়েদের ফলাফলে শুধু তারা নয়, গোটা এলাকার মানুষ খুশি।
আর্থিক কষ্টের সঙ্গে লড়াই করে তারা সফলতা পেয়েছেন। মহেশপুর উপজেলার ভোলাডাঙ্গা গ্রামের আছের উদ্দিনের ছেলে শাহিন আলম (১৮) জানান, পরিবারের পক্ষে তার পড়ার খরচ জোটানো সম্ভব হয়নি।
নিজেই কাজ করে খরচ জুটিয়েছেন। জিপিএ-৫ প্রাপ্তরা জানান, তাদের কলেজের ইংরেজি শিক্ষক এ.এম ইদ্রিস আলী তাদের পড়ালেখার বিষয়ে খুব সহযোগিতা করেছেন। তিনি এই সব মেধাবীদের টাকা ছাড়াই পড়িয়েছেন।
শিক্ষার্থী কবুরা খাতুন জানান, তার বাবা কলেজে যাওয়ার জন্য প্রতিদিন যে ১০ টি করে টাকার প্রয়োজন হতো, তাও দিতে পারতেন না। যে কারনে তিনি সপ্তাহে ১ থেকে ২ দিন ক্লাস করতেন। চার কিলোমিটার পাঁয়ে হেটে কলেজে যেতে হতো তাকে।
এলাকার ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও কলেজ পরিচালনা কমিটির সদস্য আব্দুল মালেক জানান, এই সব সন্তানেরা তাদের গর্ব। এরা যে ফল নিয়ে এসেছে তাতে গোটা এলাকার মানুষ খুশি।

#

     আরো পড়ুন:

পুরাতন খবরঃ

শুক্র শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০৩১