June 20, 2021, 3:39 pm

#
ব্রেকিং নিউজঃ
ভালুকায় ভূমিদস্যু পারুল বাহিনীর শাস্তির দাবীতে মানববন্ধনসাতক্ষীরা তালা বাজার মডেল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় অবকাঠামোগত খাতে পিছিয়েকুবিতে কর্মকর্তা পরিষদের দায়িত্ব হস্তান্তরফুলেল শুভেচ্ছায় শিক্ত হলেন ফরিদপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি জননেতা খলিলুর রহমান সরকারলাকসামে মুজিববর্ষের জমি ও গৃহ প্রদান উদ্বোধনসাপাহারে গৃহহীন পরিবারকে ঘর হস্তান্তরের শুভ উদ্বোধনহরিনাকুন্ডুর কৃতি সন্তান জিদানকে র‌্যাঙ্ক ব্যাজ পরাচ্ছেন গর্বিত পিতামাতা-অভিনন্দন সকলকেসকলকে নৌকার পক্ষে কাজ করার আহ্বান জানালের কেন্দ্রীয় যুবলীগ নেতা এহতাশেমুল হাসান ভূঁইয়া রুমিপীরগঞ্জে মুজিববর্ষ উপলক্ষে ভূমিহীন-গৃহহীন পরিবারকে জমি ও গৃহ প্রদান কার্যক্রম দ্বিতীয় পর্যায় শুভ উদ্বোধন।আরএমপি’র মতিহার ক্রাইম বিভাগের উদ্যোগে পালিত হলো বৃক্ষরোপণ অভিযান-২০২১

কে এই তাজুল ইসলাম বর্তমান এলজিআরডি মন্ত্রী??

কে এই তাজুল ইসলাম বর্তমান এলজিআরডি মন্ত্রী??

এম এ কাদের অপুঃ

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নির্বাচিত হয়ে সরকারের নতুন মন্ত্রিসভায় স্থান পেয়েছেন মোঃ তাজুল ইসলাম। স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ে মন্ত্রীর দায়িত্ব পেয়েছেন তিনি। 

১৯৫৫ সালের ৩০ জুন জন্মগ্রহণ করেন তাজুল ইসলাম। তার বাবার নাম জুলফিকার আলী ও মায়ের নাম আনোয়ারা বেগম। তার ছাত্রজীবন শুরু হয় গ্রামের পোমগাঁও সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে। মাধ্যমিক পরীক্ষা দেন পোমগাঁও উচ্চ বিদ্যালয় থেকে। উচ্চ মাধ্যমিক লাকসাম নওয়াব ফয়জুন্নেছা সরকারি কলেজ এবং অনার্স-মাস্টার্স চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় (ব্যবস্থাপনা বিভাগ) থেকে।

নিজ এলাকায় শিক্ষার বিস্তারে তার অবদান অনেক। তিনি নিজ এলাকায় অসংখ্য স্কুল কলেজ তৈরি করেছেন। তার বাবার নামে একটি কারিগরি স্কুল তৈরি করেছেন। তিনি নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনেটর হিসেবে দীর্ঘদিন দায়িত্ব পালন করেছেন।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কুমিল্লা ৯ (লাকসাম-মনোহরগঞ্জ) আসনে মো. তাজুল ইসলাম (নৌকা প্রতীক) বিএনপি প্রার্থী কর্নেল (অব.) এম আনোয়ার উল আজিমকে (ধানের শীষ প্রতীক) বিপুল ভোটের ব্যবধানে হারিয়ে নির্বাচিত হন।

নির্বাচনের ফলাফলে মো. তাজুল ইসলাম পান ১ লাখ ৪১ হাজার ৬১৫ ভোট এবং কর্নেল (অব.) এম আনোয়ার উল আজিম ৫ হাজার ৩৫৩ ভোট পান।

এর আগে মো. তাজুল ইসলাম ১৯৯৬ সালে সর্বপ্রথম জাতীয় সংসদের সদস্য নির্বাচিত হন। ২০০৮ সালের নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আবারও তিনি নৌকা মার্কা নিয়ে জয়ী হয়ে সংসদে যান এবং ২০১৪ সালের নির্বাচনে জয়ী হয়ে তৃতীয় বারের মত জাতীয় সংসদে যান। সর্বশেষ একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে তিনি আবারও সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন।

আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী হিসেবে টানা তৃতীয়বারের মতো নির্বাচিত হয়ে হ্যাটট্রিক করেন মো. তাজুল ইসলাম। এ নিয়ে তিনি চতুর্থবারের মতো জাতীয় সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন তিনি।

নির্বাচিত হওয়ার পরই নতুন সরকারের মন্ত্রিসভায় স্থান পান তিনি। দায়িত্ব পেয়েই তিনি বলেন, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ইশতেহার মোতাবেক প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশের প্রতিটি গ্রামকে শহরে পরিণত করার কাজ ইতোমধ্যে শুরু হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, গ্রাম উন্নয়ন হলে গ্রামাঞ্চলের সব মানুষ উন্নত জীবনের সুবিধা পাবে। তিনি সরকারের উন্নয়নের ধারাবাহিকতা রক্ষায় সবার সহযোগিতা চাই। আগামী ৫ বছরে দেশের সামগ্রিক উন্নয়নে পৃথিবীকে তাক লাগিয়ে দেওয়া হবে। প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া দায়িত্ব সততা, মেধা ও দক্ষতার সঙ্গে পালন করা হবে।

সংক্ষিপ্ত জীবনী ও রাজনৈতিক পথচলা:
জুলফিকার আলী ও আনোয়ারা বেগম দম্পতির ৩ ছেলে ও ৪ মেয়ের মধ্যে তিনি সবার বড়। ছাত্রজীবন শুরু হয় গ্রামের পোমগাঁও সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে। মাধ্যমিক পরীক্ষা দেন পোমগাঁও উচ্চ বিদ্যালয় থেকে। উচ্চ মাধ্যমিক লাকসাম নওয়াব ফয়জুন্নেছা সরকারি কলেজ এবং অনার্স-মাস্টার্স চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় (ব্যবস্থাপনা বিভাগ) থেকে। শিক্ষার বিস্তারে তার অবদান অনেক। তিনি নিজ এলাকায় অসংখ্য স্কুল কলেজ তৈরি করেছেন। তার বাবার নামে একটি কারিগরি স্কুল তৈরি করেছেন। তিনি নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনেটর হিসেবে দীর্ঘদিন দায়িত্ব পালন করেছেন।

বৈবাহিক জীবন:
সহধর্মীনি ফৌজিয়া ইসলাম। বিবাহিত জীবনে তিনি ২ ছেলে ও ২ মেয়ের জনক। ছেলেরা শিক্ষাজীবন শেষ করে দেশের মাটিতে ব্যবসা-বাণিজ্য করছেন। নিজেদের শিল্প প্রতিষ্ঠানের পরিচালক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। মেয়েদের মধ্যে একজন ব্যারিস্টার আর অন্যজন উচ্চ শিক্ষার জন্য আমেরিকায় পড়াশুনা করছেন। বিয়ের পর পর চট্টগ্রামে সাফল্যের ছোঁয়া পায় মোঃ তাজুল ইসলাম। নিজের মেধা ও যোগ্যতার মাধ্যমে সাফল্যের সাথে নিজেকে দাঁড় করান এক নতুন দিগন্তে। ফেবিয়ান গ্রুপ অব ইন্ডাস্ট্রিজ সহ বর্তমানে ২০ টি প্রতিষ্ঠানের সত্ত্বাধিকারী তিনি। যমুনা ব্যাংকসহ ২টি বেসরকারি ব্যাংকের পরিচালনা করছেন তিনি। দৈনিক প্রতিদিনের সংবাদ পত্রিকার প্রকাশক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

রাজনৈতিক জীবন:
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আশির্বাদপুষ্ট মোঃ তাজুল ইসলাম ১৯৯৬ সালে সর্বপ্রথম লাকসাম-মনোহরগঞ্জের মাটি ও মানুষের ভালবাসাকে পুঁজি করে মহান জাতীয় সংসদে নৌকা প্রতীক নিয়ে জয়ের মালা পরিধান করে। ২০০৮ সালের নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আবারো তিনি নৌকা মার্কা নিয়ে জয়ী হয়ে মহান জাতীয় সংসদে যান এবং ২০১৪ সালের নির্বাচনে ৩য় বারের মত মহান জাতীয় সংসদে যান। এতদাঞ্চলের ব্যাপক উন্নয়ন কর্মকান্ডে তিনি সর্বশেষ একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আবারও সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন।
শেখ হাসিনার উন্নয়নকে সামনের দিকে এগিয়ে নিতে তিনি দিনরাত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন। তিনি তার নির্বাচনী এলাকায় উন্নয়নের ধারাবাহিকতা অব্যাহত রেখেছেন। সততা, আদর্শিক রাজনীতি, উন্নয়ন কর্মকান্ড ও মানুষের ভালোবাসায় আজ তিনি দেশের গস্খরুত্বপূর্ন মন্ত্রণালয় স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় (এলজিআরডি) মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী হিসেবে পেয়েছে এলাকার জনগণ।

 

#

     আরো পড়ুন:

পুরাতন খবরঃ

শুক্র শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০