January 30, 2023, 5:50 am

#
ব্রেকিং নিউজঃ
যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী বীর মুক্তিযোদ্ধা মকবুল হোসেন তালুকদার রচিত “হৃদয়ে বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশ এবং শান্তিবৃক্ষ শেখ হাসিনা” দু’টি গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন।বনেকের উদ্যোগে ব্যাতিক্রমধর্মী শীতবস্ত্র বিতরণ।আ.লীগ জাতীয় পরিষদের সদস্য এম আলাউদ্দিন মিয়ার সুস্থ্যতা কামনায় মিলাদ মাহফিল।এলাকার প্রভাবশালীদের অত্যাচারে অতিষ্ঠ অসহায় একটি পরিবার।লাকসামে ৭টি বিদ্যালয়ে ইংরেজি ভার্সন উদ্বোধন এবং ইমামদের সাথে বৈঠক করলেন এলজিআরডি মন্ত্রী।কুমিল্লায় এমপি সীমার শীতবস্ত্র বিতরণ ও আওয়ামী লীগ সরকারের উন্নয়ন বিষয়ক আলোচনা সভা।সাতকানিয়া সরকারি কলেজের ব্যাচ’৯৯ পুণর্মিলনী অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত।কুমিল্লায় আর্তমানবতার সেবায় নেয়ামতউল্লাহ ফাউন্ডেশনের আত্ব প্রকাশ।ক্ষতবিক্ষত মরদেহে নির্যাতনের ছাপ স্পষ্ট! মামলা না নিয়ে উল্টো হুমকি।সাবেক এমপি জয়নাল আবেদীন ভূঁইয়ার ১৮তম মৃত্যু বার্ষিকী পালিত।

কুমিল্লায় বিধবা ও দুই এতিম সন্তানকে সম্পত্তি থেকে বঞ্চিত করার পায়ঁতারা।

জামাল উদ্দিন স্বপন,কুমিল্লা:

কুমিল্লায় বিধবা নারী ও তারা দুই এতিম মেয়েকে শাশুড়ীও ননদ কর্তক সম্পত্তি থেকে বঞ্চিত করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঘটনার সূূত্রে জানা গেছে, কুমিল্লার বরুড়া উপজেলার আগানগর ইউনিয়নের আগানগর গ্রামের গাজী বাড়িতে সুবেদার আবদুল ছালেকের একমাত্র ছেলে মৃত সাইফুল ইসলামের স্ত্রী জাকিয়া সুলতানাকে কোন ঘটনা ছাড়াই গত ৪/১/২৩ বুধবার সকাল ৯টার দিকে শাশুড়ী লুৎফুন নাহার ও ননদ হাসিনা মিলে বেধম মারধোর করে গায়ে আগুনের চ্যাকা দিয়ে নির্যাতন করে। অঙ্গান অবস্থায় ৯৯৯ নাইনে ফোন করে ও গ্রামের মানুষের সহযোগিতায় জাকিয়া সুলতানা প্রথমে বরুড়া সরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে সেখান থেকে বরুড়া সরকারি হাসপাতাল থেকে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়।
ভুক্তভোগী পরিবার ও গ্রামবাসী সূত্রে জানা গেছে, বরুড়ার ভারেল্লা গ্রামের মৃত আমির হোসেন ও মৃত হোসনেয়ারা বেগমের ৫ কন্যা সন্তানের সবার বড় জাকিয়া সুলতানার সাথে আগানগর গ্রামের মৃত সুবেদার আবদুস সাত্তারের একমাত্র ছেলে সাইফুল ইসলামের সাথে ২০০৭ সালের ২৭ জুলাই পারিবারিক ভাবে বিবাহ হয়। বিয়ের পরের বছরই তাদের সংসারে আলোকিত করে আসে মেয়ে সন্তান নুপুর। বর্তমানে সে ৮ম শ্রেণীতে অধ্যয়নরত স্থানীয় একটি হাইস্কুলে। ঝুমুর নামেও আরেকটি কন্যা সন্তান আছে তাদের। সেও ১ম শ্রেণীতে পড়ে। ২০১৮ সালের ১৮ জুলাই স্ট্রোক করে স্বামী সাইফুল ইসলাম ইন্তেকাল করলে শুশুর বাড়িতে অবহেলাও নির্যাতনের স্বীকার হতে থাকেন বিধবা জাকিয়া সুলতানা। পারিবারিক আত্মমর্যাদা ও ভবিষ্যতের কথা ভেবে শত লাঞ্চনা গঞ্জনাকে মাটি চাপা দিয়ে নিরবে সহ্য করে যান,দুই এতিম মেয়েকে নিয়ে বেঁচে থাকার আশায়। বিয়ের পর থেকে জাকিয়া সুলতানার উপর নানান নির্যাতনের অন্যতম একটি হলো, ২০২১ সালের এপ্রিলের ১ম সপ্তাহে, সোশ্যাল মিডিয়ার একটি ভিডিও তে দেখা যায়, শাশুড়ী লুৎফুন নাহার জাকিয়া সুলতানাকে বিল্ডিং ঘরের ভিতর আটকে রেখে বাইরে তালা ঝুলিয়ে রাখে। পরে ৯৯৯ নম্বরে কল করে জাকিয়া সুলতানাকে উদ্ধার করে গ্রামবাসী ও থানা পুলিশ। এ বিষয়ে বরুড়া থানায় জিডি হলেও সামাজিক ভাবে মীমাংসা করা হয়। কিন্তু দিন দিন শাশুড়ী নুৎফুন নাহারের নির্যাতন চরম আকার ধারন করে। নিজের ৪ মেয়ের মধ্যে হাসিনা,জেসমিন, মোরশেদা, জোসনার কুর্কীতি ধামাচাপা দিতেও নিজের একমাত্র ছেলে সাইফুলের রেখে যাওয়া প্রথম স্ত্রীর ঘরে জন্ম নেয়া মেহেদী হাসান দিপু ও পরের ঘরের স্ত্রী জাকিয়া সুলতানার ঘরে জন্ম নেয়া দুই মেয়ে নুপুর ও ঝুমুরের সম্পত্তি আত্মসাধ করতে নীলনকশা আকছেন বলে জানা গেছে। গ্রামবাসী জানান, শাশুড়ী ও ননদদের অত্যাচারে সাইফুলের ১ম স্ত্রীও টিকতে পারে নাই। এদিকে শাশুড়ী লুৎফুন নাহার ও ননদ হাসিনা পূর্বকল্পিত ভাবে গত ৪ জানুয়ারী চুলার লাকড়ি দিয়ে বেধম মারধোর করে অঙ্গান করে উঠানে ফেলে রাখে বিধবা রাজিয়া সুলতানাকে। পরে গ্রামবাসীর সহযোগিতায় বরুড়া হাসপাতালে তাকে ভর্তি করানো হয়। এই ঘটনায় বরুড়া থানায় জিডি করার জন্য জাকিয়া সুলতানার পক্ষে গ্রামবাসী গেলেও মামলা নেয়া হয়নি,বরং জাকিয়া সুলতানাসহ গ্রামের সর্দারও কিছুু মানুষের বিরুদ্ধে উল্টো মামলা টুকে দেন ননদ হাসিনা।
এদিকে ঘটনার পর কুমিল্লা থেকে চিকিৎসা নিয়ে গত ১২ জানুয়ারী জাকিয়া সুলতানা তার দুই কন্যা নিয়ে আগানগরের বাড়িতে আসলে, দেখেন বাড়িতে তালা ঝুলিয়ে রাখা হয়েছে। এই অসহায় মহিলা এখন কোথায় যাবে, সমাজ ও দেশ কি নেই? সুষ্ঠু বিচার নেই? এমন প্রশ্ন বিধবা জাকিয়া ও তার প্রতিবেশীদের। এই ব্যাপারে জানতে চাইলে জাকিয়া সুলতানা জানান, আমি অল্প বয়সে আমার স্বামীকে হারিয়েছি। আমার অবুঝ দুই মেয়েকে নিয়ে স্বামীর ভিটেবাড়িতে দুচালা উঠিয়ে হলেও সামাজিক মর্যাদা নিয়ে বসবাস ও জীবন অতিবাহিত করতে চাই। আমি আমার দুই মেয়েকে মানুষের মত মানুষ করতে চাই।’ আরেকটি প্রশ্নের জবাবে জাকিয়া সুলতানা জানান,এত মারধোর করার পরও শাশুড়ীও ননদ এর উপর কোন অভিযোগ নাই, বরং আমি সবার সাথে মিলেমিশে চলতে চাই। এ ব্যাপারে স্থানীয় একজন দোকানদার নাম প্রকাশ করার শর্তে জানান, বিষয়টির একটি সুষ্ঠু সমাধান করা হোক। ব্যবসায়ী মাসুম জানান, গ্রামের মানুষ হিসেবে অন্যদের সাথে আমিও বিষয়টি সুরাহা করতে এগিয়ে যাই, গত ৩/৪ বছর ধরে। উল্টো শাশুড়ী ও ননদ পক্ষের লাঞ্চনার শিকার হতে হচ্ছে আমাকে। গ্রামের একাধিক লোকজন জানিয়েছেন,থানা পুলিশ ও আদালত কেও কেয়ার করেন না শাশুড়ী লুৎফুন নাহারও তার মেয়ে হাসিনা সহ অন্যরা।
বাংলাদেশ সাংবাদিক কল্যান ও মানবাধিকার সংগঠনের নাঙ্গলকোট উপজেলার শাখার সভাপতি সোহরাব হোসেন জানিয়েছেন, বিষয়টি খুবই দু:খজনক। এটি মানবাধিকার লংঘন হচ্ছে। যা শাশুড়ীও ননদ ঠিক কাজ করছে না।’
বরুড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ইকবাল বাহার জানিয়েছেন, আমরা সবার অভিযোগ নিই। ওনাদেরও আসতে বলেন। আমরা অভিযোগ নিবো। অভিযোগ নিয়ে যার অন্যায়,তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।

#

     আরো পড়ুন:

পুরাতন খবরঃ

শুক্র শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০৩১